বেপরোয়া মাদককারীদের বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর শক্ত অবস্তানে। আবারো টেকনাফ বিশেষ জোন, ঢাকা মেট্রো (উত্তর), কুমিল্লা, সুনামগঞ্জ, হবিগঞ্জ ও চাঁদপুরে বিপুল পরিমাণ মাদক উদ্ধার।

(বুধবার ) ২৫ মে ২০২২, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর টেকনাফ বিশেষ জোন এর সহকারী পরিচালক সিরাজুল মোস্তফা মুকুল এর নেতৃত্বে একটি টিম গোপন সংবাদের ভিত্তিতে, টেকনাফ পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের সামনে অভিযান পরিচালনা করে ৩৭,০০০ (সাইত্রিশ হাজার) পিস ইয়াবাসহ এনায়েতুল্লাহ (১৯) নামে এক রোহিঙ্গা মাদককারীকে হাতেনাতে গ্রেফতার করে। সহকারী পরিচালক সিরাজুল মোস্তফা আমাদের প্রতিনিধিকে বলেন উদ্ধারকৃত আলামতের আনুমানিক মূল্য প্রায় ১,১১,০০০০০ ( এক কোটি এগারো লক্ষ) টাকা। আসামীর বিরুদ্ধে টেকনাফ থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন-২০১৮ অনুযায়ী একটি নিয়মিত মামলা দায়ের করা হয়।

এদিকে, (মঙ্গলবার) ২৪ মে ২০২২, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর, ঢাকা মেট্রো (উত্তর) এর উপপরিচালক মো: রাশেদুজ্জামান এর সার্বিক তত্তাবধানে, সহকারী পরিচালক মোঃ মেহেদী হাসান এর নেতৃত্বে উত্তরা ও রমনা সার্কেলের এর সমন্বয়ে গঠিত একটি রেইডিং টিম গোপন সংবাদের ভিত্তিতে হাতিরঝিল এলাকায় ২৩,০৮৫ (তেইশ হাজার পচাঁশি পিস) ইয়াবাসহ মো: আতিক হোসেনকে হাতেনাতে গ্রেফতার করে।

অপর অভিযানে ভাটারা থানাধীন জোয়ার সাহারা সাওরা বাজার এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে মোঃ আব্দুল্লাহ (২৯) কে ৪০০ (চারশত) পিস ইয়াবা ও তার ব্যবহৃত স্যামস্যাং-১০ নামীয় ১টি মোবাইল ফোনসহ হাতেনাতে গ্রেফতার করে।  

এছাড়াও, (বুধবার) ২৫ মে ২০২২, ভাটারা থানাধীন বসুন্ধরা এলকায় অভিযান পরিচালনা করে ১১০ পিস ইয়াবা, একটি মোটর সাইকেল ও মাদকবিক্রির নগদ অর্থ ৫৪,৫০০ (চুয়ান্ন হাজার পাঁচশত) টাকাসহ মো: জামাল হোসেন (৪২) কে হাতেনাতে গ্রেফতার করে। আসামীদের বিরুদ্ধে রমনা সার্কেল পরিদর্শক তমিজ উদ্দিন মৃধা, উত্তরা সার্কেল উপপরিদর্শক রোকেয়া পারভীন ও রমনা সার্কেল উপপরিদর্শক মো: মোশাররফ হোসেন বাদী হয়ে সংশ্লিষ্ট থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন-২০১৮ অনুযায়ী পৃথক পৃথক নিয়মিত মামলা দায়ের করেন বলে জানা যায়।

(বুধবার) ২৫ মে ২০২২, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর জেলা কার্যালয় কুমিল্লার সহকারী পরিচালক চৌধুরী ইমরুল হাসান এর সার্বিক তত্ত্বাবধানে, ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার নির্বাহী অফিসার ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট সোহেল রানা এর নেতৃত্বে কুমিল্লা জেলা  কার্যালয়ের উপপরিদর্শক তমাল মজুমদার, বিভাগীয় সদস্য, ছাড়াও ব্রাহ্মণপাড় উপেজলার আনসার সদস্য ও বিজিবি অংশগ্রহণে একটি যৌথ টিম গোপন সংবাদের ভিত্তিতে,ব্রাহ্মণপাড়া থানাধীন নারায়নপুর উত্তরপাড়া জজু মেম্বারের বাড়িস্থ আক্তার হোসেন (৪৪) পিতাঃ মৃত আঃ আজিজ, সাং-নারায়নপুর (উত্তর পাড়া) থানাঃ ব্রাহ্মণপাড়া জেলাঃ কুমিল্লা নামীয় আসামীর নিজ দখলীয় বসতঘরে টাস্কফোর্স অভিযান পরিচালনা করে  ১৫ (পনের) কেজি গাঁজাসহ আসামীকে  হাতেনাতে গ্রেফতার করে। আসামীর বিরুদ্ধে উপপরিদর্শক তমাল মজুমদার বাদী হয়ে ব্রাহ্মণপাড়া থানায় একটি নিয়মিত মামলা দায়ের করেন।

অন্যদিকে, (বুধবার) ২৫ মে, ২০২২ মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর জেলা কার্যালয় সুনামগঞ্জ এর সহকারী পরিচালক সাজেদুল হাসান এর দিক নির্দেশনায় একটি টিম, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে, ছাতক থানাধীন জাউয়া কোণাপাড়া এলাকায় বকতার মিয়ার বসতঘর তল্লাশী করে বকতার মিয়া (৩৫), পিতা- মনফর আলীকে ১,৭০০ (এক হাজার সাতশত) পিস ইয়াবাসহ হাতেনাতে গ্রেফতার করে। আসামির বিরুদ্ধে উপপরিদর্শক মোঃ মামুনার রশীদ বাদী হয়ে ছাতক থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন-২০১৮ অনুযায়ী একটি নিয়মিত মামলা দায়ের করা হয় বলে জানা যায়।

অন্যদিকে, (সোমবার) ২৩ মে ২০২২, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর জেলা কার্যালয় হবিগঞ্জ এর সহকারী পরিচালক এ. কে. এম দিদারুল আলমের সার্বিক তত্বাবধানে পরিদর্শক, কাজী হাবিবুর রহমান এর নেত্বত্বে একটি টিম গোপন সংবাদের ভিত্তিতে, নবিগঞ্জ থানাধীন নোয়াগাও গ্রামে অভিযান পরিচালনা করে ১।মোঃ ইউছুপ আলি (৪০) কে ৭ (সাত) কেজি গাঁজাসহ হাতেনাতে গ্রেফতার করে। এসময় রেইডিং টিমের উপস্থিতি টের পেয়ে মোঃমুছদ্দর আলী (৫১) পালিয়ে যায়। আসামীদের বিরুদ্ধে পরিদর্শক কাজী হাবিবুর রহমান বাদী হয়ে নবিগঞ্জ থানায় মাদকদ্রব্য আইন- ২০১৮ অনুযায়ী পৃথক পৃথক ২টি নিয়মিত মামলা দায়ের করেন।

এছাড়াও, (সোমবার )২৩ মে ২০২২, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর, জেলা কার্যালয় চাঁদপুর এর সহকারী পরিচালক মোঃএমদাদুল ইসলাম মিঠুন এর সার্বিক তত্বাবধানে, পরিদর্শক মোঃ মজিবুর রহমান এর নেতৃত্বে গঠিত একটি রেডিং টীম গোপন সংবাদের ভিত্তিতে, চাঁদপুর সদর মডেল থানাধীন বিষ্ণুদী স্বর্ণখোলা রোডস্থ বাদশা মিয়ার চায়ের দোকানের সামনে অভিযান পরিচালনা করে মোঃ কাজল মিয়া (৩৫)কে ০৪(চার) কেজি গাঁজাসহ হাতেনাতে গ্রেফতার করে। আসামীর বিরুদ্ধে পরিদর্শক মোঃ মজিবুর রহমান বাদী হয়ে চাঁদপুর সদর মডেল থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন-২০১৮ অনুযায়ী একটি নিয়মিত মামলা দায়ের করেন।