থমথমে শ্রীলঙ্কা, এখনই সরকার গঠন না হলে কী ঘটতে পারে?

এখনও থমথমে শ্রীলঙ্কা। রাজধানী কলম্বোসহ বিভিন্ন শহরে নিরাপত্তা ব্যবস্থার কড়াকড়ি চোখে পড়ার মতো। রাস্তায় এখানে সেখানে পড়ে আছে গত দুদিনের সহিংসতার চিহ্ন। রাজনৈতিক অস্থিতিশীলতা দূর না হলে পদত্যাগের ঘোষণা দিয়েছেন দেশটির কেন্দ্রীয় ব্যাংকের গভর্নর। দুই দিনের মধ্যে নতুন সরকার গঠন না হলে অর্থনীতি পুরোপুরি স্থবির হয়ে যাবে বলে সতর্ক করেন তিনি।

অর্থনৈতিক সংকটে টালমাটাল শ্রীলঙ্কায় গত দুই মাস ধরে চলা বিক্ষোভ চূড়ান্ত রূপ নেয় সোমবার। পদত্যাগে বাধ্য হন প্রধানমন্ত্রী মাহিন্দা রাজাপাকসে। চরম সহিংসতায় রূপ নেয় গণবিক্ষোভ। দেশটিতে সোম ও মঙ্গলবারের সংঘাতে এ পর্যন্ত দুই পুলিশ সদস্যসহ ৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। আহত দুই শতাধিক। ক্ষতিগ্রস্ত অন্তত ১৩৬টি বাড়িঘর। বেশ কিছু জায়গায় লুটপাটের তথ্যও দিয়েছে দেশটির প্রতিরক্ষা বিভাগ।

এদিকে, দুয়েকদিনের মধ্যেই নতুন প্রধানমন্ত্রী ও মন্ত্রিসভা গঠনের ঘোষণা দিয়েছেন শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট গোতাবায়া রাজাপাকসে। পার্লামেন্টকে আরও ক্ষমতা দিতে সাংবিধানিক সংস্কার করা হবে বলেও জানিয়েছেন প্রেসিডেন্ট। বুধবার টেলিভিশনে প্রচারিত এক ভাষণে গোতাবায়া রাজাপাকসে বলেন, দেশকে নৈরাজ্যের হাত থেকে রক্ষায় তারা আলোচনা করবেন সব দলের সাথে। এসময় তিনি জনগণের আস্থাভাজন সরকার গঠনেরও আশ্বাস দেন। এমনকি নবগঠিত সরকারে রাজাপাকসে পরিবারের কেউ থাকবে না বলেও জানান তিনি।